Fiverr HelpFreelancing Help

ফাইভার বাংলাদেশের হাজার যুবকের বুকের ভেতর চাপা থাকা একটা স্বপ্নের নাম

একটা লাল বাতি জ্বলে উঠার অপেক্ষা , একটা অর্ডার কনফার্মেশন এর প্রবল ইচ্ছা।😞
দিনশেষে ইচ্ছা আর স্বপ্নে ধুলোর আস্তরন পড়ে তার কারন হলো কিছু ছাতার মতো গড়ে উঠা আই টি সেন্টার , আর নামের পাশে ফ্রিলান্সার ট্যাগ লাগানো কিছু নব ফ্রিলান্সার।
মার্কেটপ্লেস অনেক কম্পেটেটিভ ভাই, এখানে কাজ পাওয়ার জন্য শুধু গিগ সামনে নিয়ে আসা জরুরি না তার পাশা পাশি নিজের স্কিল্ড কে এমন পর্যায়ে নিয়ে যান, যাতে করে কখনো এই ভয় থাকে না, বায়ার এর কাজ টা করার পর বায়ার কি বাজে রিভিউ দিবে নাকি অর্ডার ক্যান্সেল করবে।
গত ৩ বছর ধরে মার্কেটপ্লেসে আছি , আমি গর্ব করছি না শুধু বলছি এখন অব্দি না কোন অর্ডার ক্যানসেল হইছে, আর না কোন রিভিউ ৫* এর কম আসছে। (ফাইভার আপওয়ার্ক দুটোই) ।
কয়েক দিন আগে কানাডার একটা এজেন্সির সাথে জব কনফার্ম হলো এবং দোয়া করবেন খুব শীঘ্রই দেশ ছাড়তেছি আল্লাহ যদি করোনা থেকে বিশ্বকে একটু স্বস্তি দেন।

উপরের কথা গুলো নিজের গুনগান করার জন্য বলিনাই।

যারা আমার লিখা পড়েন অথবা আমার সাথে কথা বলছেন তারা বলতে পারবেন।
আমার ইনবক্সে প্রতিটা মেসেজের পরে , একটা আক্ষেপ থাকে ভাই ধার করে ল্যাপটপ কিনছি কয়েক মাস হলো , কোন কিছুই করতে পাচ্ছি না। সত্যি খারাপ লাগে এই কথা গুলো শুনে। ভাবি ইসস, তাদের জন্য যদি কিছু করতে পারতাম। তবে অপারগত হেল্প ছাড়া কিছুই করতে পারিনা। 😔

কিছু কথা বলি একজন মার্কেটিং এক্সপার্ট হিসেবে,

ভাই আমরা যারা বাংলাদেশ থেকে নতুন ভাবে শুরু করি, তাদের জন্য একটু কষ্ট হয়ে যায় মার্কেট প্লেসে দাড়ানো তার কারন হলো , আমাদের শেখার চেয়ে ইনকাম করার মনোবাসনা বেশি |
আমার এখনো মনে আছে প্রথম অর্ডার প্রথম বায়ার প্রথম গিগ রেংক করার স্মৃতিটুকু।

যারা নতুন আছেন,

ভাই আপনি হাল ছাইড়েন না প্লিজ যারা নতুন আছেন। আল্লাহ সবাইকে সুযোগ দেন আপনি শুধু ওই সুযোগটা কাজে লাগান।
যত পারেন স্কিলড ডেভেলপ করেন নতুন আপডেট এর সাথে নিজেকে আপডেট করেন। জোকের মতো মার্কেটপ্লেসে লেগে থাকেন মনে রাখবেন নিজার ভাগ্য নিজেকে পরিবর্তন করতে হবে কেউ আসবেনা। একবার দাড়িয়ে যান পড়ে আপনাকে কেউ থামিয়ে রাখতে পারবেন না।

যারা নতুন আছেন প্রতিদিন এই ৫ টা কাজ করেন তারপর পরিবর্তন দেখেন :

১। ৮-১২ ঘন্টা অনলাইন।
২। বায়ার রিকোয়েস্ট সেন্ড ১০ টা প্রতিদিন। কপি পেস্ট না বায়ার যা চায় তার উত্তর টুকু দেন। বায়ার এর বাজেট এর সাথে নিজের কাজ কে কম্পায়ার করেন।
৩। একটা ভিডিও দেখেন নিজের স্কিল এর উপর যা এডভান্স। ট্রাই করবেন ইংরেজি ভিডিও দেখার যাতে করে ইংরেজি তে আপনি আপনার সার্ভিস সম্পর্কে বায়ার কে বলতে পারেন।
৪। নিজের কম্পিটিটর দের দেখেন তারা কি করছে কিভাবে সার্ভিস দিচ্ছে কেন তারা বেস্ট। দেখবেন অনেক কিছু শিখতে পারবেন।
৫। ইংরেজি ৫ টা সেন্টেন্স শিখেন যা কমিউনিকেশন করতে লাগে।
শুভকামনা ভাই /বোন
হৃদয়
Top Rated Upwork
Level 2 Fiverr.

Related Articles

Leave a Reply

Check Also
Close
Back to top button