Fiverr HelpFreelancing Help

Tips For New Seller

আপনার প্রতিটা কর্মের জন্য আপনি যতদিন অব্দি না নিজেকে দায়ী করতে পারছেন ততদিন অব্দি সফলতা শব্দ কে ভুলে যান , আপনার প্রতিটা ভুলের দায় আপনাকেই নিতে হবে আর প্রতিটা সফলতার জন্য নিজেই নিজেকে সংবর্ধনা দিতে হবে।
উপরের কথা গুলো বলার পেছনের কারন টা বলি, আমরা প্রায়ই লক্ষ্য করি , আমরা কাজ না পাওয়ার পেছনে ফাইভার কে দায়ী করছি , লেভেল দারী সেলারদের দায়ী করছি , কিন্তু আসলে দায় টা আপনার ।
ভেবে বলুন তো এতদিন অব্দি ফাইভার সম্পর্কে কতটুকু রিসার্চ করছেন , শুধু এই ভাই এমন বলছেন ওই ভাই এমন করছেন আমি ও করবো আমি ও অর্ডার পাবো ।
সবার ট্রিক্স এন্ড টিপস আলাদা। আজকে আমি প্রথম অর্ডার পাওয়ার জন্য কিছু দিক নির্দেশনা দিয়ে যাবো , ধন্যবাদ টা না হয় অর্ডার পাওয়ার পরেই দিবেন।

Tips for New Fiverr Sellers

১। ভাবেন , প্ল্যান রেডি করেন , তারপর আগানঃ

আপনি একজন নতুন সেলার , যার মানে একটা বড় মার্কেটপ্লেসে একটা নবজাতক শিশু, আপনি এখন ই যদি দোড়াতে চান , তাহলে খুব বড় বোকামি হয়ে যাবে , আগে হামাগুড়ি দেন , তারপর হাটেন আর তারপর না হয় দোড়ান ।
মানে,
একটু সময় নেন , ভাবুন কোন বিষয়ে সার্ভিস দিবেন , সেই বিষয় টা নিয়ে একটু ঘাটাঘা্টি করেন। আর নিচের ৫ টা দিক ভেবে সার্ভিস ক্রিয়েট করেনঃ
১। লং টেইল কীওয়ার্ড।
২। লো কম্পেটিটিভ কীওয়ার্ড।
৩। ভালো করে দেখেন নতুন সেলার রা এই কীওয়ার্ডে র্যাংক করছে কী না?
৪। প্রথম ৫ টা গিগে কী পরিমান অর্ডার আছে । মিনিমাম ২০ টা হলে ওই সার্ভিস বা কীওয়ার্ড টা নিয়ে গিগ ক্রিয়েট করেন।
৫। গিগ এস ই ও করেন । ( পোস্ট করে দিব রবিবারে গিগ এস ই ও নিয়ে)

২। একটা ভিডীও এড করেনঃ

যারা social Media Marketing জানেন , তারা অবশ্যই এইটা জানেন , ভিডিও ইমেইজ থেকে বেশি Reach হয় । আপনি আপনার সার্ভিস নিয়ে একটা ৬০ সেকেন্ড এর ভিডীও বানান , ভয়েজ না দিতে পারলেও ও স্লাইড শো এবং হালকা ব্যাকগ্রাউন্ড দিয়ে রেডি করেন। সেই ভিডীও তে ভালো করে ফুটিয়ে তুলেনঃ
  • আপনি কে ?
  • কি সার্ভিস দিচ্ছেন?
  • এই সার্ভিস কেন ক্লাইন্ট নিবে?
  • কয়েকটা ওয়ার্ক সেম্পল
আপনার ইম্পেশন বাড়বে , ক্লিক আসবে আর অবশ্যই র্যাংকে আসার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যাবে।

৩। গিগের ডেলিভারী টাইমঃ

আমরা বাংলাদেশি সেলার রা , গিগ কপি পেস্ট করার জন্য ওস্তাদ । আমরা শুধু গিগ কপি পেস্ট করিনা , সার্ভিস পেকেজ সব কপি পেস্ট , আর তার জন্য ই এতো হাহাকার , একটু সময় নিয়ে নিজে নিজে লিখেন ভাই গিগ এর সবকিছু।
আর এই ভুল টা করি অন্য সেলার রা যে সার্ভিস ১০/১৫ দিনে অফার করে , আমরা পারি বা না পারি ৭ দিনে অফার করে বসবো , ক্লাইন্ট আপনার এই বোকামি কে খুব ভাল করে ইগনোর করে যাবে ।
আপনার গিগ প্রাইজের সাথে সাথে ডেলিভারী টাইম মানানসই রাখেন যাতে করে ক্লাইন্ট বুঝতে পারে আপনি প্রফেশনাল ।
ফাইভার একটা প্রফেশনাল মার্কেটপ্লেইস , বোকামি করতে হলে টিকটকে চলে যান।

৪। প্রোফাইল টা সাজানঃ

ক্লাইন্ট আপনার বাড়ি ঘর স্ট্যাটাস , পলিটিক্যাল ব্যাকগ্রাউন্ড কিছুই দেখবেনা , যা দেখবে তাহলো প্রফাইল , একটা আদর্শ প্রফাইল সাজান , যা দেখে মনে হয় আপনি প্রফেশনাল কেউ । যেমনঃ
১। আপনার একটা হেডশট নেন আর মুখে যেন হাসি থাকে , একজন হাস্যোজ্জল মানুষকে অপর একজন মানুষ সহজেই বিশ্বাস করে।
২। নিজের ফেইস যেন পরিস্কার বুঝা যায় একটা ওয়ার্ম ব্যাকগ্রাউন্ড রাখেন।
৩। সাইজ 250 ×250 Px এ রাখেন ।
৪। একটা ভালো স্লোগান ব্যবহার করেন , প্লিজ কমন গুলো না, ইউনিক আর সুন্দর দেখে আর যা আপনার সার্ভিসের সাথে যায় এমন।
৫। ডেস্ক্রিপশনে আপনি আপনার সম্পর্কে বলুন , আপনার সার্ভিস সম্পর্কে বলুন যাতে করে ক্লাইন্ট আপনার সম্পর্কে একটা পজিটিভ ফিডব্যাক পায়।

৫। এপ টা ফোনে ইন্সটল রাখেনঃ

ফাইভার এপ্স টা ইনস্টল করে রাখেন আর মনে করে অনলাইন স্ট্যাটাস অন করে নেবেন সেটিং থেকে , ঘরের বাইরে থাকলে , কারনে অকারনে , চেতনে অবচেতনে এপ্স টায় স্ক্রল করেন এইটা আপনাকে এক্টিভ আর অনলাইনে রাখতে সাহায্য করবে।

মনে রাখবেন,

আপনাকে জানতে হবে , প্রচুর শিখতে হবে । যত জানবেন তত শিখবেন আর শিখবেন তবেই তো ইনকাম করতে পারবেন, জীবন আপনাকে এমনিতে কিছু দিবেনা আপনাকে চিনিয়ে নিতে হবে। আপনি নতুন মানে আপনাকে অন্যদের চেয়ে দ্বিগুন সময় দিতে হবে।
আমার আগের আর্টিকেল গুলো পড়ে আসেন , অনেক কিছু জানতে পারবেন , রবিবারে দেখা হবে , গিগ এস ই ও আর গিগ র্যাংক এর টিপস নিয়ে।
এই গুলি পড়েতে পারেন ।
সবার জন্য শুভকামনা,
হৃদয়
টপ রেটেড ( আপওয়ার্ক)
লেভেল টু ( ফাইভার)
মার্কেটিং হেড ( Pouvoir En Legne , Torento , Canada)

Related Articles

Leave a Reply

Back to top button